Class 4 Bengali Model Activity Task Full Marks 40

Class 4 Bengali Model Activity Task Full Marks 40

Class 4 Bengali Model Activity Task Full Marks 40

১. একটি বাক্যে উত্তর দাও :

১.১ সন্দেহ নাই মাত্র।’- কোন্ বিষয়ে কবির মনে কোনাে সন্দেহ নেই? 
উত্তর: বিরাট খাতা স্বরূপ পৃথিবীর পাতায় পাতায় বর্ণিত বিষয়গুলি কবি যে কৌতূহলে শিখছেন সেই বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

১.২ তােত্তো-চান স্কুলে গিয়ে ইয়াসুয়াকি-চানকে কোন অবস্থায় দেখতে পেল? 

উত্তর: তোত্তো-চান স্কুলে গিয়ে দেখল ইয়াসুয়াকি-চান ফুলগাছগুলোর পাশে দাঁড়িয়ে আছে।

১.৩ “… সবাই বল্লে ‘বেজায় মিঠে’!”— তাদের কাছে কোন্ কোন্ খাবার ‘বেজায় মিঠে’ লেগেছিল? 

উত্তর: ধুলো-বালির কোর্মা-পোলাও আর কাদার পিঠে তাদের কাছে বেজায় মিঠে লেগেছিল।

১.৪ ‘বক সে চালাক অতি চিকিৎসক—চুঞ্চু।’—‘চুঞ্চু’ শব্দের অর্থ কী? 

উত্তর: চুঞ্চু শব্দের অর্থ ওস্তাদ বা এক্সপার্ট।

১.৫ ‘মালগাড়ি’ কবিতায় কথক কার কাছে মালগাড়ি’ হওয়ার বর চাইবে? 

উত্তর: যদি মিষ্টি একটি পরি কথকের বাড়িতে আসে তাহলে তার কাছে ‘মালগাড়ি’ হওয়ার বর চাইবে।

১.৬ ‘সে ঘাের বনে মানুষের নামগন্ধ নেই, শুধু জানােয়ারের কিলিবিলি!’—কোন্ জঙ্গলের কথা বলা হয়েছে? 

উত্তর: এখানে লুশাই জঙ্গলের কথা বলা হয়েছে।

১.৭ ইচ্ছা করে সেলেট ফেলে দিয়ে অনি করে বেড়াই নিয়ে ফেরি।’—কথকের কী কী ফেরি নিয়ে বেড়াতে ইচ্ছে করে? 

উত্তর: কথকের চুড়ি, চিনের পুতুল ইত্যাদি ফেরি নিয়ে বেড়াতে ইচ্ছে করে।

১.৮ ‘বােতাের দেখা পাওয়া নাকি সবসময়ই ভালাে’ – ‘বােতাে’র পরিচয় দাও। 

উত্তর: বোতো একটি সামুদ্রিক প্রাণী, লম্বায় তিন-চার হাত। তার নাক বা ঠোঁট খুব সরু, লম্বায় প্রায় এক-দেড় হাত। মস্ত বড়ো মাথা, লেজটা শরীরের প্রান্ত থেকে দু-দিকে ভাগ হয়ে গিয়েছে। শরীরের রং গোলাপি।

১.৯ ‘ধলেশ্বরী খ্যাপা নদী।’ – একথা বলা হয়েছে কেন?

উত্তর: ধলেশ্বরী নদী তালে বেতালে চলে। এলোপাতাড়ি ঢেউয়ের ধাক্কা কখনও এদিক হতে এসে লাগে, কখনও ওদিক হতে। চলার তাল ঠিক রাখতে জানে না ধলেশ্বরী। তাই ধলেশ্বরীকে খ্যাপা নদী বলা হয়েছে।

১.১০ ‘মন উন্মন্ গাে। – কার মনের এমন পরিস্থিতি? 

উত্তর:  সত্যেন্দ্রনাথ দত্তের লেখা ‘ দূরের পাল্লা ‘ কবিতায় ঘোমটা – পরা এক গ্রাম্য বধুর মনের আনমনা পরিস্থিতির কথা এখানে বলা হয়েছে।

২. নিজের ভাষায় উত্তর দাও :

২.১ ‘নানান ভাবের নতুন জিনিস শিখছি দিবারাত্র।‘সবার আমি ছাত্র’ কবিতায় কবি কীভাবে প্রকৃতি থেকে দিনরাত নানান ভাবের নতুন জিনিস শেখেন? 


উত্তর: প্রকৃতির প্রতিটি উপাদান থেকে কবি প্রতিনিয়ত শিক্ষা গ্রহণ করে চলেছেন। আকাশ কবিকে উদার হবার শিক্ষা দেয়, বাতাস কর্মী হতে শেখায়। পাহাড় শিক্ষা দেয় মৌন মহান হবার, খোলামাঠ দিলখোলা হওয়ার শিক্ষা দেয়। সূর্য শেখায় আপন তেজে জ্বলতে আর মিঠে হাসির মধুর কথা বলতে শেখায় চাঁদ। সাগর রত্নাকর হবার শিক্ষা দেয়, মাটি কবিকে শেখায় সহিষ্ণু হওয়ার। পাষাণ কর্তব্যকর্মে কঠোর হতে বলে, ঝরনা প্রাণে গান জাগায় আর বনভূমি কবির মধ্যে সরসতা সঞ্চার করে।

২.২ ‘গাছে ওঠা ব্যাপারটা তাহলে এইরকম!’—বক্তার অভিজ্ঞতার নিরিখে গাছে ওঠা ব্যাপারটা কীরকম? 

উত্তর: তোত্তো-চান ইয়াসুয়াকি-চানকে তার গাছে চড়ার নিমন্ত্রণ দিয়েছিল। ইয়াসুয়াকি-চানের পোলিওর সমস্যা থাকায় তার গাছে চড়তে সমস্যা। তাই তোত্তো-চান স্কুলের দারোয়ানের ঘর থেকে একটি মই নিয়ে আসে। কিন্তু ইয়াসুয়াকি-চান সেই মই দিয়ে উঠতে ব্যর্থ হলে তোত্তো-চান বাড়ির সিঁড়ির মত আর একটি মই নিয়ে আসে। দীর্ঘ চেষ্টার পর ইয়াসুয়াকি-চান মইয়ের মাথায় পৌঁছল। এরপর তোত্তো-চান গাছের ডালে দাঁড়িয়ে মাইয়ের মাথায় পেটের উপর ভর দিয়ে শোওয়া ইয়াসুয়াকি-চানকে প্রাণপণে টানতে থাকে। অবশেষে তারা দুজনে গাছের ডালের উপর মুখোমুখি দাঁড়াতে পারল। তোত্তো-চান ইয়াসুয়াকি-চানকে স্বাগত জানালো। এটাই ছিল ইয়াসুয়াকি-চানের প্রথম গাছে চড়া।

২.৩ ‘আম-বাগিচার তলায় যেন তারা হেসেছে।’—একথা বলা হয়েছে কেন? 

উত্তর: নুরু, পুষি, আয়ষা, শফিরা বৈশাখ মাসের এক দুপুরে আমবাগানে মিছিমিছি এক বনভোজনের আয়োজন করেছে। প্রত্যেকে বাড়ি থেকে রান্নার যাবতীয় সরঞ্জাম নিয়ে এসেছে। তারা ভোজের আয়োজনে ব্যস্ত। দুপুর বেলায় যখন তাদের বাবা-মা ঘুমিয়ে আছে, এই সুযোগে তারা আপন ইচ্ছামতো খেলার আনন্দে মত্ত। তাই বলা হয়েছে আম-বাগিচার তলায় তারা হাসছে।

☛ সমস্ত বিষয়ের উত্তর পেতে: Click Here

২.৪ ‘মালগাড়ি কবিতায় কথকের ‘মালগাড়ি’ হতে চাওয়ার তিনটি কারণ নির্দেশ করাে। 

উত্তর: কথকের ‘মালগাড়ি’ হতে চাওয়ার তিনটি কারণ হলো-
(i) কথক মালগাড়ির মতো কোন টাইম টেবিল না মেনে সমস্ত লাইনকে একার মনে করে বহুদূর চলে যেতে চান।
(ii) মালগাড়ির মতো কথক যাওয়া-আসার বাঁধা ঠিক-ঠিকানায় কোথাও থামতে বা চলার নিষেধ মানতে চান না।
(iii) মানুষ যখন তাড়াতাড়ি পৌঁছতে চায় গন্তব্যস্থলে, তখন মালগাড়ির মতো ধীরে ও অশেষ চলাতেই কথক সুখ পেতে চান।

২.৫ ‘উবা আমার চোখের দৃষ্টি দেখে বুঝতে চায় …’— উবা কী বুঝতে চায় ?

উত্তর: জঙ্গলে ঘুরতে ঘুরতে উবা হাঁটু গেড়ে বসে এবং লেখককেও বসতে বলে। তারপর উবা লেখকের চোখের দৃষ্টি দেখে বুঝতে চায় তিনি কে? তিনি কোথা থেকে এসেছেন? কোন পৃথিবীর মানুষ তিনি, সেই পৃথিবীটা কীরকম?

২.৬ বর্শা দিয়ে বিধবে তারা, রাজ্যে আমার এলে।’ – কারা এমনটি করবে? 

উত্তর: বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের লেখা ‘আমি সাগর পাড়ি দেবো’ কবিতার কথক হাঙর, কুমির, তিমি — প্রত্যেকের আক্রমণ প্রতিহত করে সপ্ত সাগর পারি দেবেন। এই জলদস্যু এবং হিংস্র প্রাণীরা তার রাজ্য আক্রমণ করলে সিন্ধু-গাজি, মোল্লামাঝি, নৌ-সেনা ও জেলেরা ওই জন্তুদের বর্শা দিয়ে বিঁধবে।

☛ সমস্ত বিষয়ের উত্তর পেতে: Click Here

২.৭ যাত্রা শুরু হলাে সেই নির্দিষ্ট দেশের দিকে। – ‘দক্ষিণমেরু অভিযান’ রচনাংশ অনুসরণে সেই অভিজ্ঞতার বিবরণ দাও। 

উত্তর: নৃপেন্দ্রকৃষ্ণ চট্টোপাধ্যায়ের লেখা ‘দক্ষিণ মেরু অভিযান’ গল্পে স্কট তার সহযাত্রীদের নিয়ে ১৯০২ সালের নভেম্বর মাসে স্লেজ গাড়িতে চেপে দক্ষিণ মেরুর দিকে যাত্রা শুরু করেন। কিছুদূর যেতে না যেতেই তীব্র তুষার ঝড়ের সম্মুখীন হতে হয় তাদের। এই অবস্থায় বেশি দূর না গিয়ে তারা ফিরে আসার সিন্ধান্ত নেন। বহু বাধা বিপত্তি কাটিয়ে কোনো রকমে প্রাণ হাতে নিয়ে তারা কিং এডওয়ার্ড দ্বীপে ফিরে আসেন।

২.৮ ‘আলাে’ নাটকে বাদুড়দের গানের বক্তব্যটি কী? 

উত্তর: লীলা মজুমদারের লেখা ‘আলাে নাটকে বাদুড়েরা গানের মাধ্যমে বোঝাতে চায় তাদের গুহাতে সোঁদা গন্ধ আর সেই গুহা বন্ধ। সেখানে অন্ধকারে তারা সাদা ধারাল দাঁত বের করে আর কালাে ডানা মেলে বসে আছে এবং তারা আলাে সহ্য করতে পারে না।

২.৯ ‘নৌকো পাড়ে লাগে।” – তখন ভাইবােনেরা কী করে?

ত্তর: ‘আমার মা-র বাপের বাড়ি’ গল্পে যখন নৌকা ধলেশ্বরী নদী পার হয়ে পাড়ে লাগে তখন ভাইবোনেরা নৌকা থেকে লাফিয়ে পড়ে। তারা নলখাগড়ার বনে এবং বালির চরে ছোটাছুটি করে। গতরাতে রান্না করা লুচি, আলুর দম, হালুয়া এসব জলের ধারে বসে খায়। তারপর হাত মুখ ধুয়ে আবার নৌকায় উঠে পড়ে।

২.১০ ‘দূরের পাল্লা’ কবিতায় নৌকো থেকে কোন্ দৃশ্য চোখে পড়ে?
ত্তর: সত্যেন্দ্রনাথ দত্তের লেখা ‘দূরের পাল্লা’ কবিতায় তিনজন মাল্লা দূরে যাত্রা করতে নৌকা চালানো শুরু করে। তাদের চোখে ভেসে ওঠে নানারূপ ছবি। দিনের বেলা তাদের চোখে পরে নদীর পাড়ে জমে থাকা জঞ্জাল, গজিয়ে ওঠা ঝোপঝাড়। নদীর জল শৈবালে পরিপূর্ণ, চরে জেগে থাকা কঞ্চির বন, বন হাঁসের তার নিজের ডিম শেওলায় ঢেকে ফেলার দৃশ্যের দেখা মেলে। পানকৌড়ি জলে ডুব দেয়, নদীর পাড়ে দ্রুত স্নান সারে ঘোমটা পরা বউ। এইসব দৃশ্য মাঝিদের চোখে পড়ে।

৩. নির্দেশ অনুসারে নীচের প্রশ্নগুলির উত্তর দাও :

৩.১ নীচের বাক্যগুলি থেকে সন্ধিবদ্ধ পদ খুঁজে নিয়ে সন্ধি বিচ্ছেদ করাে :

৩.১.১ সমুদ্রের একটি নাম রত্নাকর। 

উত্তর: রত্নাকর = রত্ন + আকর 

৩.১.২ আমাদের বিদ্যালয় আমাদের গর্ব। 

উত্তর: বিদ্যালয় = বিদ্যা + আলয়

৩.১.৩ তােমার দায়িত্ব সকলকে স্বাগত জানানাে। 

উত্তর: স্বাগত = সু + আগত 

৩.১.৪ ‘রমেশ শরৎচন্দ্র চট্যোপাধ্যায়ের একটি বিখ্যাত চরিত্র।

উত্তর: রমেশ = রমা + ঈশ 

৩.১.৫ সকলের মতৈক্য হওয়া সম্ভব নয়। 

উত্তর: মতৈক্য = মত + ঐক্য

৩.২ সন্ধি করাে : 

৩.২.১ সুধী + ইন্দ্র =

উত্তর: সুধী + ইন্দ্ৰ = সুধীন্দ্র 

৩.২.২ দাম + উদর = 

উত্তর: দাম + উদর = দামোদর 

৩.২.৩ পূর্ণ + ইন্দু =

উত্তর: পূর্ণ + ইন্দু = পূর্ণেন্দু 

৩.২.৪ দিবস + অন্ত = 

উত্তর: দিবস + অন্ত = দিবসান্ত

৩.২.৫ বন + ওষধি =

উত্তর: বন + ওষধি = বনৌষধি

☛ সমস্ত বিষয়ের উত্তর পেতে: Click Here

1. You may also like: Class 4 Model Activity Task 2021 All Subjects

2. You may also like: কীভাবে ‘Student Credit Card’ এর জন্য আবেদন করতে হবে।

Class 4 Model Activity Task Bengali Full Marks 40

Official Website: Click Here

Class 4 Bengali Model Activity Task 2021

Class 4 Bengali Model Activity Task Part- 8

Leave a Comment

CLOSE

You cannot copy content of this page